Logo

 
ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)
Logo

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) সম্পর্কে

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) একটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ, দলীয় রাজনীতিমুক্ত ও অলাভজনক বেসরকারি প্রতিষ্ঠান । টিআইবি এমন এক বাংলাদেশ দেখতে চায় যেখানে সরকার, রাজনীতি, ব্যবসা-বাণিজ্য, নাগরিক সমাজ ও সাধারণ মানুষের জীবন হবে দুর্নীতির প্রভাব থেকে মুক্ত। সর্বস্তরে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠা এবং সুশাসনের চাহিদা গড়ে তুলতে ১৯৯৬ সাল থেকে একটি দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলন হিসেবে পরিচিত যার উদ্যোগে দুর্নীতিবিরোধী একটি জোরালো অবস্থান জন-আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে সুপ্রতিষ্ঠানিক এবং নীতি সংস্কারে অনুঘটকের ভূমিকা পালনে সমর্থ হয়েছে। টিআইবি একদিকে জাতীয় পর্যায়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রাতিষ্ঠানিক এবং নীতি সংস্কারে অনুঘটকের ভূমিকা পালনে সমর্থ হয়েছে। অন্যদিকে স্থানীয় পর্যায়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রাতিষ্ঠানিক এবং নীতি সংস্কারে অনুঘটকের ভূমিকা পালনে সমর্থ হয়েছে। অন্যদিকে স্থানীয় পর্যায়ে সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) ও ইয়ুথ এনগেজমেন্ট অ্যান্ড সাপোর্ট (ইয়েস) -এর উদ্যমী স্বেচ্ছাসেবীদের প্রচেষ্ঠায় সরকারি- বেসরকারি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসহ সর্বস্তরে দুর্নীতিবিরোধী মূল্যবোধ ও প্রত্যয় দৃঢ়তর হচ্ছে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিশ্ব আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে টিআইবি বার্লিনভিত্তিক ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই)-এর বাংলাদেশ চ্যাপ্টার হিসেবে স্বীকৃত এবং সেই হিসেবে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে টিআই-এর বিশ্বব্যাপী অন্যান্য চ্যাপ্টারগুলোর সাথে একযোগে কাজ করে থাকে। টিআইবি’র গবেষণা, নাগরিক, সম্পৃক্ততা, যোগাযোগ ও প্রচারাভিযানের উদ্দেশ্য হলো নীতি ও প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কারের কার্যকর চাহিদা সৃষ্টি করা যার ফলে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ, দারিদ্র্য-হ্রাস এবং টেকসই উন্নয়ন ত্বরান্বিত হয়। টিআইবি’র মৌলিক প্রাতষ্ঠানিক নীতির মধ্যে আছে জেন্ডার সংবেদনশীলতা এবং লিঙ্গ, ধর্ম জাতিসত্বা বা অন্য যেকোনো পরিচয়ের ঊর্ধ্বে থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনা বিশেষ করে গণতন্ত্র, সুশাসন ও আইনের শাসনের প্রতি অকুণ্ঠ অনমনীয় প্রত্যয়। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র অনুপ্রেরণায় সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), রাজশাহী মহানগর এর নতুন কমিটি ১৭ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে গঠন করা হয়েছে। নতুন কমিটির সভাপতি মনোনীত হয়েছেন রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. দীপকেন্দ্র নাথ দাস। এছাড়া নবগঠিত কমিটির সহ-সভাপতি (নারী) হিসেবে মনোনীত হয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির রাজশাহী বিভাগীয় প্রধান অ্যাডভোকেট দিল সিতারা চুনি এবং সহ-সভাপতি (পুরুষ) হিসেবে মনোনীত হয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সিদ্ধার্থ শংকর তালুকদার। অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান। সনাক, রাজশাহী মহানগরের ১১ সদস্যবিশিষ্ট নতুন কমিটির অন্য সদস্যবৃন্দ হলেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের চেয়ারপারসন প্রফেসর আব্দুল্লাহ আল মামুন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা: মীর্জা ওয়াজেদ হোসেন বেগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ডেপুটি রেজিস্ট্রার সফিউদ্দিন আহমদ, রাজশাহী ক্যান্সার হাসপাতাল ও গবেষণা কেন্দ্র ট্রাস্টের চিকিৎসক ডা. শিখা বিশ্বস, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, রাজশাহীর সভাপতি কল্পনা রায়, আদিবাসি নেতা এভারিস্ট হেমব্রম, বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট) এর সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট সামিনা বেগম এবং গাজী টেলিভিশনের রাজশাহী সংবাদদাতা রাশেদ রিপন। সনাক এর নতুন কমিটির পরিচিতিকরণ অনুষ্ঠানে টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ ঘোষণা করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার সাথে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহ এবং গণমাধ্যম একাত্মতা ঘোষণা করে কাজ করলে দুর্নীতির বিরুদ্ধে শক্তিশালী ভিত্তি গড়ে তোলা যাবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান গ্রহণ করেছিলেন।

 

NGO সমূহ