Logo

 
জাতীয় তরুন সংঘ (জেটিএস)02
Logo

জাতীয় তরুন সংঘ (জেটিএস)02 সম্পর্কে

সংগঠন পরিচিতিঃ “হাজারীবাগ তরুণ সংঘ” থেকেই “জাতীয় তরুণ”। ১৯৬৬ সালের ১ লা অক্টোবর কতিপয় কিশোর দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়। হাজারীবাগ তরুণ সংঘ। প্রতিষ্ঠার পরই সমাজ সেবা অভিদপ্তর থেকে স্থানীয় সংস্থা হিসেবে নিবন্ধন লাভ করে। শুরুতে সংস্থার কার্যক্রম ছিল খেলাধুলা ও রচনা প্রতিযোগীতা,পাঠাগার স্থাপন,নৈশ ও প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা,পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কর্মসূচী সহ বিভিন্ন সমাজ উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড।অতি অপ্ল সময়ের মধ্যে সংস্থাটি তাদের কা্র্যক্রম দ্বারা ঢাকার বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী এবং পৌর কর্পোরেশনের সৃদৃষ্টি আকর্ষণে সক্ষম হয়। স্বাধীনতার পর কমনওয়েলথ দেশের একটি যুব প্রতিনিধি দল বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম দেখার জন্য বাংলাদেশ আসে। সে সময় যুব প্রতিনিধি দলটি “হাজারীবাগ তরুন সংঘের” কার্যক্রম পরিদর্শন করে কর্মসূচির এবং উদ্দ্যেগতাদের ভীষন প্রশংসা করেন এবং সংস্থাটিরকে জাতীয় সংস্থা হিসেবে গড়ে তোলার পরামর্শ দেন।এর ফলে ১৯৭৩ সালে “ হাজারীবাগ তরুন সংঘ” - “ জাতীয় তরুন সংঘ” হিসেবে সমাজ সেবা অধিদপ্তরের থেকে নিবন্ধন লাভ। সমাজ সেবা নিবন্ধনের পাশাপাশি সংস্থার এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর নিবন্ধন রয়েছে। অধিভুক্তিকরণ রয়েছে-পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর, যুব উন্নয়ন অভিদপ্তর, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ক্রণ অধিদপ্তরে। এছাড়া সংস্থাটি বিভিন্ন ফোরাম/নেটওয়ার্ক এর সদস্য। আন্তর্জাতিক ভাবে সংস্থাটি “বিশ্ব যুব সংস্থার সদস্য এবং জাতি সংঘের ডিপার্টমেন্ট অব পাবলিক ইনফরমেশন-এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে কাজ করে আসছে। সংগঠনের ভিশণ(Vision): জাতীয় তরুণ সংঘ-এর ভিশণ হচ্ছে-যে সব নাগরিক বাংলাদেশের জনগনের কল্যানের জন্য দায়িত্ব পালনে আগ্রহী তাদের সক্রিয় করে কাজে লাগানো। সংগঠনের মিশন(Mission): জাতীয় তরুণ সংঘ -এর মিশন হচ্ছে জনগনের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করা এবং বিশেষ করে যুবকদের বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণের মা্ধ্যমে টেকসই ও স্থায়ী উন্নত সমাজ গঠন করা যেখানে ন্যায়পরায়তা এবং সমস্বয় থাকবে। সংগঠনের মূলনীতি(Values): যাদের সাথে সংস্থার কাজে সম্পর্কে ও অংশীদারিত্ব আছে,তাদের সাথে সব ধরণের কর্মকান্ডে থাকবে ন্যায়পরতা্ । এটা সততা,স্বচ্ছতা এবং পক্ষপাতশূন্য কার্যক্রম দ্বারা প্ররিচালিত। সংস্থার বর্তমান কর্মসূচীঃ এনইএইচএসডিপিঃ সরকারী পরিবার পরিকল্পনা ,মা ও শিশূর স্বাস্থ্য কার্যক্রমকে সার্বিক সহযোগীতার জন্য এউএসএইড-এর আর্থিক এবং পাথফাইন্ডার ইন্টারন্যাশনাল-এর কারিগরি সহযোগীতায় এনজিও হেলথ সার্ভিস ডেলিভারি প্রজেক্ট (এনএইচএসডিপি) এর আওতায় জাতীয় তরুণ সংঘ দেশের ১৪ টি জেলায় (নারাণগঞ্জ,গাজীপুর,চাঁদপুর,মানিকগঞ্জ,ময়মনসিংহ,নেত্রকাণা,রাজশাহী,নাটোর,চুয়াডাংগা,ঝিনাইদহ,যশোর, নড়াইল বরিশাল এবং সুনামগঞ্জ) দীর্ঘ দিন যাবৎ কর্মসূচী পরিচালনা করে আসছে। এ কর্মসূচীর আওতায় ৩৫০,০০০ অধিক পরিবারকে পরিবার পরিকল্পনা,মা ও শিশুর স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করা হচ্ছে।এনএইচএসডিপি কর্মসূচি মূল লক্ষ্য হচ্ছে যে সকল এলাকায় এখনও সেবা পৌছায়নি এবং যারা আর্থিক ক্রণে সেবা নিতে পারছে না তাদের সেবা নিশ্চিত করা। স্ট্যাটিক,স্যাটালাইট ও কমিউনিটি সার্ভিস প্রোভাইডারের মাধ্যমে সেবা প্রদান করা হয়। রিপ্রোডাকটিভ হেলথ (সেফ মাদার হুড,ফ্যামিলি প্ল্যালিং,আরটিআই,নিওনেটাল কেয়ার),চাইল্ড হেলথ (ইমুনাইজেশন,এর আরআই ,আইএমসিআই),বিহেভিওর চেনজ কমিউনিকেশন,কমিউনিকেবল ডিজিজ কন্ট্রোল (টিবি, ম্যালেরিয়া,),লিমিটেড কিউরেটিভ কেয়ার। প্যারামেডিক প্রশিক্ষণঃ জাতীয় তরুণ সংঘ ২০০৪ সাল থেকে ২বছর মেয়াদী প্যারামেডিক প্রশিক্ষণ কোর্স পরিচালনা করে আসছে। এ সকল প্রশিক্ষনার্থীবৃন্দ ১ বছর তত্ত্ববিষয়ক বিদ্যা লাভের পর আজিমপুর মেটারিনিটি সেন্টারসহ বিভিন্ন বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের ক্লিনিকে ১ বছর ব্যবহারিক জ্ঞান লাভ করে। এ কর্মসূচি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে বহু কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। আর্থসামাজিক উন্নয়ন কর্মসূচিঃ দারিদ্র মানুষের আর্থ সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে জাতীয় তরুণ সংঘ ২০০২ সাল থেকে মানিকগঞ্জ জেলাধীন শিবলায় ও হরিরামপুর উপজেলায় এ কর্মসূচি আওতায় বর্তমান ১০০০ জন সদস্য রয়েছে । সদস্যবিদৃ তাদের প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য সংস্থা থেকে ঋণ গ্রহণ করে থাকে এবং সাপ্তাহিক কিস্তিতে তা পরিশোধ করে থাকে। শিক্ষা কর্মসূচিঃ জাতীয় তরুণ সংঘ প্রতিষ্ঠার পন থেকেই শিক্ষা কার্যক্রমের উপর গুরুত্ব দিয়ে আসছে । তাই ১৯৬৭ সালে প্রতিষ্ঠা করে হাজারীবাগ তরুণ সংঘ প্রাথমিক বিদ্যালয়। পরবর্তীতে বিদ্যালয়টি সরকারীকরণের মাধ্যমে “হাজারীবাগ তরুণ সংঘ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়” নামে পরিচালিত হচ্ছে কালের স্বাক্ষী হিসেবে। এ ভাবেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে “ জাতীয় তরুণ সংঘ হাসিবপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়,জাতীয় তরুণ সংঘ একাডেমী,জাতীয় তরুণ সংঘ বড় পাংগাসী ডিগ্রী কলেজসহ বিভিন্ন মহা মানবদের নামে জাতীয় তরুণ সংঘ আয়মুলক কর্মসূচি হিসেবে ১৯৮১ সাল থেকে “ জাতীয় তরুণ সংঘ শিশু শিক্ষা নিকেতন” নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাজারীবাগ পরিচালনা করে আসছে। মানবাধিকার বিষয়ক সচেতনামূলক কর্মসূচিঃ গ্রামের সাধারণ মানুষের মাধ্যে মানবাধিকার বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে ইতিমধ্যে ১৬ জন স্টাফকে(৮জন মহিলা ৮জন পুরুষ) জাতীয় মানবাধিকার কমিশন প্রশিক্ষণ প্রদান করেছে।এ সকল স্টাফ তাদের নিজ নিজ কর্ম এলাকায় দলীয় সভা বা একক যোগাযোগের মাধ্যমে জনসাধারণকে মানবাধিকার বিষয়ক সচেতনতা সৃষ্টি করছে। সচেতনতা পাশাপাশি কোন মানবাধিকার লংঘিত হলে তাদের আইনি সহায়তা,জাতীয় মানবাধিকার কমিশন এর সাথে যোগাযোগ করে দেয়া অন্যতম। গবাদিপশু মোটাতাজাকরণ কর্মসূচিঃ অংশীদারীত্তের ভিত্তিতে জাতীয় তরুণ সংঘ গবাদি পশু মোটাতাজাকরণ কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। যাদের অর্থ বিনিয়োগ করার সামর্থ নেই তাদের সংস্থার পক্ষ থেকে শর্ত সাপেক্ষে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয় এবং পরবর্তীতে লভ্যাংশ/ক্ষতি বহন করা হয়। স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে কর্মসূচিঃ জাতীয় তরুণ সংঘের বিভিন্ন গ্রাম ও উপজেলা শাখা তাদের নিজস্ব উদ্দ্যোগে স্থানীয় পর্যায়ে নানাবিদ সামাজিক কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করে আসছে। যেমনঃ মৎস চাষ,বৃক্ষ রোপন,শবজি চাষ,ক্রীড়া প্রতিযোগীতা,পাঠাগার স্থাপন ইত্যাদি।

 

NGO সমূহ