Logo

 

আফসার হোসেন-সিআরপি, রাজশাহী এর সেবা সমূহ

অর্থোটিক্স এন্ড প্রস্হৈটিকস

ফিজিওথেরাপি

ফিজিওথেরাপিঃ ফিজিওথেরাপি এমন একটি বিজ্ঞান সম্মত চিকিৎসা ব্যবস্থা যা একজন রোগীকে শারীরিক এবং মানসিক ভাবে সক্রিয় করে তোলে এবং তাদের পুনর্বাসনে সাহায্য করে । ফিজিওথেরাপির ক্ষেত্র সমূহঃ • মাসকুলোস্কেলেটাল এবং অর্থোপেডিক কন্ডিশন- বাত, ব্যাথা, হাড় ভাঙ্গা, মেরুদন্ডে আঘাত প্রাপ্ত, হাঁটু ও কোমর ব্যাথা,অস্থি সন্ধির ব্যাথা, মাংশপেশীর দূর্বলতা, লিগামেন্টে আঘাত, অস্টিও পোরোসিস, আথ্রাইটিস । • নিউরো লজিক্যাল কন্ডিশন- স্ট্রোক, প্যারালাইসিস, জিবিএস, ট্রান্সভার্স মাইলাইটিস, পেরিফেরাল নিউরোপ্যাথি, ফেসিয়াল বা বেলস পালসি, মাথার আঘাত প্রাপ্তসহ বিভিন্ন স্নায়ু রোগ । • পেডিয়াট্রিক কন্ডিশন বা শিশু রোগ- সেরেব্রাল পলসি, ডাউন সিনড্রোম, জন্মগত ক্রুটি, হাড় বাঁকা, মুগুর পা, বিকলঙ্গতাসহ বিভিন্ন ধরণের শিশু রোগ । • স্পোর্টস ইন্জুরি- খেলাধুলাসহ বিভিন্ন ধরণের আঘাত/ ক্রীড়াজনিত আঘাত এবং তাদের পূনর্বাসন। • স্পাইনাল কর্ড ইন্জুরি- মেরুদন্ডে আঘাত প্রাপ্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসা এবং পূনর্বাসন। • গাইনোকোলজিক্যাল কন্ডিশন- গর্ভবতী মা এবং প্রসব পরবর্তী পূনর্বাসন। • কৃত্রিম অঙ্গ সংযোজন- কৃত্রিম হাত ও পা সংযোজন এবং তাদের চিকিৎসা এবং পূনর্বাসনে ফিজিওথেরাপির ভূমিকা অপরিসীম।

অকুপেশনাল থেরাপি

প্রতিবন্ধিতা প্রতিরোধ, চিকিৎসা ও পুনর্বাসনে অকুপেশনাল থেরাপিঃ অকুপেশনাল থেরাপি এমন একটি চিকিৎসা সেবামূূুলক পেশা যা একজন ব্যক্তিকে তার শারীরিক, মানসিক এবং সামাজিক সীমাবদ্ধতা ও প্রতিবন্ধীতা দূরীকরণের মাধ্যমে সুস্থ্য ও স্বনির্ভর জীবনযাপনে সক্ষম হতে সাহায্য করে। চিকিৎসা ক্ষেত্রসমূহঃ স্নায়ু রোগঃ স্ট্রোক, মেরুদন্ডের আঘাত, মস্তিষ্কের আঘাত, গুলেনবারি সিন্ড্রোম (জিবিএস) সহ সব ধরণের প্যারালাইসিস। হাড়, জোড়া ও মাংসপেশির রোগঃ বাত, হাড়ভাঙ্গাসহ মাংসপেশির ক্ষয় ও দূর্বলতাসহ ব্যাথা ও আঘাতজনিত রোগ। শিশুরোগ বিষয়কঃ জন্মগত শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধীতা, সেরিব্রাল পালসি(সিপি), অটিজম, বুদ্ধি প্রতিবন্ধিতা, ডাউসিন্ড্রমসহ সব ধরনের শিশুবন্ধীতা। হাতের রোগঃ আগুনে পুরা, হাত ভাঙ্গা, কাঁধ-কুনুই-কব্জি ও বৃদ্ধা আঙ্গুলে তীব্র ব্যাথাসহ হাত ও আঙ্গুলের বিভিন্ন সমস্যা। মানসিক রোগঃ সিজোফ্রেনিয়া, মাদকাসক্তিও বিষন্নতাসহ অন্যান্য মানসিক রোগ।

স্পিচ্ এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ থেরাপি

স্পিচ এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ থেরাপিঃ যেসকল ব্যক্তি(শিশু/ বয়স্ক) তাদের বাক সমস্যার কারণে অন্যের সাথে কথা বলা/ ভাব বিনিময়ে বাঁধার সম্মুখীণ হয়ে থাকে অথবা যাদের খাবার চিবাতে,গিলতে সমস্যা হয় তাদের জন্য স্পিচ এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ থেরাপি একটি বিজ্ঞান সম্মত চিকিৎসা ব্যবস্থা। যাদের জন্য এ চিকিৎসা পদ্ধতিঃ • শিশুবিষয়ক- সেরিব্রাল পলসি, অটিজম, ডাউন সিনড্রোম, শ্রবণ প্রতিবন্ধীতা, ঠাঁট ও তালুকাঁটা, ল্যাঙ্গুয়েজ ডিলে এন্ড ডিজঅর্ডার, স্পিচ ডিলে এন্ড ডিজঅর্ডার, আর্টিকোলেশন এন্ড ফোনোলজিক্যাল ডিজঅর্ডার এবং খাবার চিবাতে এবং গিলতে সমস্যা। • স্নায়ু রোগ বিষয়ক- স্ট্রোক, মাথায় আঘাত প্রাপ্ত রোগী, ডিমেনসিয়া, ফেসিয়াল বা বেলস পালসি, মোটর নিউরন ডিজিজ, গুলেনবারী সিনড্রোম, আলজাইমার ডিজিজি, পারকিনসন ডিজিজ, খাবার চিবাতে এবং গিলতে সমস্যা। • মানসিক সমস্যা বিষয়ক- সিজোফ্রেনিয়া, পার্সোনালিটি ডিজঅর্ডার, বিষন্নতা। • এছাড়াও কন্ঠস্বর জনিত সমস্যা ও তোতলামি জনিত সমস্যার চিকিৎসা করা হয়ে থাকে। চিকিৎসা পদ্ধতিঃ প্রত্যেক ব্যক্তিই স্বতন্ত্র। তাদের সমস্যার ধরন, কারণ আলাদা। তাই একজন স্পিচ এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ থেরাপিস্ট রোগীর সমস্যার ধরন, কারণ ও অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে তার চিকিৎসা পদ্ধতি নির্ধারণ করে থাকেন। একক অথবা দলবদ্ধভাবে এবং প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে চিকিৎসা প্রদানের মাধ্যমে রোগীকে যোগাযোগে সক্ষম করে তোলাই স্পিচ এন্ড ল্যাঙ্গুয়েজ থেরাপির উদ্দেশ্য।

মেডিক্যাল কনসালটেন্সি

বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ

বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণঃ বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ এমন একটি প্রশিক্ষণ যা একজন ছাত্র - ছাত্রীকে ব্যবহারিক কাজ কর্ম হাতে কলমে শিক্ষা দেওয়া হয়। যা দিয়ে একজন প্রতিবন্ধী ছাত্র-ছাত্রী অন্যের বোঝা হয়ে না থেকে নিজের জীবিকার ব্যবস্থা নিজেই করতে পারেন। তিনটি বিষয়ের উপর এ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণ সমূহঃ 1. কম্পউটার 2. দোকান ব্যবস্থাপনা 3. সেলাই প্রশিক্ষণ এছাড়াও সি আর পি সাভার এবং চট্টগ্রামে ইলেকট্রনিক্স এবং সি আর পি গনক বাড়ীতে গার্মেন্স প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। কম্পিউটারঃ বাংলাদেশ কারীগরি শিক্ষা বোর্ডের আওতায় বেসিক ট্রেড 360 ঘন্টা (তিন মাস) মেয়াদী কম্পউটার অফিস এ্যাপ্লিকেশন (ব্যবহারিক) প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এবং কোর্স শেষে বোর্ড পরীক্ষার মাধমে মূল্যায়ন করে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। কম্পউটার কোর্সে ভর্তির জন্য একজন ছাত্র-ছাত্রীর নূন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা এস.এস.সি পাস হতে হয়। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অগ্রাধীকার দেওয়া হয়। অফিস এ্যাপ্লিকেশন কোর্স এর মধ্যে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল,একসিস, পাওয়ার পয়েন্ট,মাল্টিমিডিয়া এবং ইন্টারনেট ব্যবহারের কাজ শেখানো হয়। দোকান ব্যবস্থাপনাঃ দোকান ব্যবস্থাপনা প্রশিক্ষণের মেয়াদ এক মাস। সমাজে পিছিয়ে থাকা সুবিধা বঞ্চিত প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের এ পশিক্ষণ দেওয়া হয়। এই এক মাস পশিক্ষণের মধ্যে তাদের শেখানো হয় কিভাবে দোকানে মালামাল ক্রয় বিক্রয় করতে হয়, দোকানের আশে পাশের পরিবেশ কেমন রাখতে হবে, কিভাবে ব্যবস্যা করলে মুনাফা হবে, ক্রেতা এবং বিক্রেতার মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক কেমন হবে, ক্রেতার চাহিদা মত মালামাল না থাকলে দোকানের কি ধরণের ক্ষতি হতে পারে, পুজির যোগান ও কিভাবে পুজির ব্যবহার করা যায় তা শেখানো, এছাড়াও তাদের হাত দিয়ে দোকানের মালামাল ক্রয়-বিক্রয় করোনো হয়। প্রশিক্ষণ শেষে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয় যা দিয়ে তারা সমাজ সেবা অফিস থেকে ঋন গ্রহণ করতে পারে। প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদের অন্যের বোঝা না হয়ে থেকে স্বনির্ভর করে গড়ে তোলাই এ প্রশিক্ষণে মূল উদ্দেশ্য।

এ্যাডভোকেসি নেটওয়ার্কিং

প্রতিবন্ধীতা প্রতিরোধ এবং প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদের অধিকার সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করণ।

 

NGO সমূহ